অনাগত শিশুর পিতৃত্বের দায় চাপল ১২ বছরের শিশুর কাঁধে

মে ২৭, ২০১৭

আপনি দেখছেন: দেশের খবর >> অধিকার, জাতীয়, নারী ও শিশু, প্রধান খবর, বাগেরহাট >> অনাগত শিশুর পিতৃত্বের দায় চাপল ১২ বছরের শিশুর কাঁধে

এস এম সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ৫ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছে ১৮ বছরের এক তরুণীর।

দরিদ্র ওই তরুণী এখন নয় মাসের গর্ভবতী। স্থানীয় নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু শিশুটির সঙ্গে ওই তরুণীর শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার রাতে তার নিজ বাড়িতে কাজি ডেকে এই অসম ও বিতর্কিত বিয়ের ব্যবস্থা করেন।

শুক্রবার শিশুটি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, তরুণীটি সম্পর্কে তার ভাইঝি। অনেক পুরুষ বিভিন্নভাবে তরুণীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরকম ৭/৮ জনকে শিশুটি চিনে বলে দাবি করে। শিশুটি জানায়, অন্যের অপকর্মের দায় অন্যায়ভাবে তার ঘাড়ে চাপানো হয়েছে।

জানা গেছে, ওই ছেলেটির বয়স এখন আনুমানিক ১২। সে স্থানীয় একটি মাদ্রাসার অনিয়মিত ছাত্র। নয় মাস আগে তার বয়স ছিল ১১ বছর, চেয়ারম্যানসহ অন্যদের দাবি ওই সময়ই নাকি ছেলেটির সঙ্গে মেলামেশায় অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে তরুণী। দুজনের বিয়ে পড়িয়ে ঘটনাটির ‘সামাজিক সমাধান’ করা হয়। চেয়ারম্যান ও অন্যারা জানান, মেয়েটি বর্তমানে নয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। চেয়ারম্যানের নির্দেশে কাজি মো. আলতাফ হোসেন ৫০ হাজার টাকা দেনমোহর ধার্য করে বিয়ে পড়িয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু বলেন, ‘ছেলে এবং মেয়ে উভয়ে খুব গরিব। দুজনের শারীরিক সম্পর্কে ওই মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে, তাই বিয়ে দেওয়া হয়েছে’। বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে বাল্যবিবাহ হতে পারে বলে জানান চেয়ারম্যান।

তবে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে কাজী আলতাফ হোসেন বলেন, ‘আমাকে বাচ্চু চেয়ারম্যান তার বাসায় ডেকে নিয়েছিলেন। ছেলের বিয়ের বয়স হয়নি। তার জন্মসনদও পাওয়া যায়নি, তাই বিয়ে পড়াইনি। তবে তাদের নিকট থেকে চেয়ারম্যান সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছেন। আমার রেজিস্ট্রারে কোন স্বাক্ষর করানো হয়নি’।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *