ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে ধরা খেলেন লালপুরের হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা

অমর ডি কস্তা, নাটোর:  নাটোরের লালপুর উপজেলার হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মোমিন আহম্মেদকে ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করেছে দুদকের কার্যালয়ের একটি দল।

বুধবার ২৫ হাজার টাকাসহ রাজশাহী বিভাগীয় দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তারা আটক করেন।

একজন অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীর পেনশনের টাকা প্রদানের জন্য ওই টাকা ঘুষ নেন মোমিন আহম্মেদ।

উপজেলার ঈশ্বরদী ইউনয়ন পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী পক্ষাঘাতে অসুস্থ কহিনুর বেগম পেনশনের টাকা তুলতে গেলে মোমিন আহম্মেদ তার কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকা ঘুষ চান।

দুদক কর্মীরা ঘুষের টাকাসহ লালপুর উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে হাতেনাতে আটক করে।

কহিনুর ঘুষ দিতে রাজি হন, একই সঙ্গে তিনি দুদকের রাজশাহী কার্যালয়ে বিস্তারিত অভিযোগ জানান।

দুদকের কর্মকর্তারা ২৫টি এক হাজার টাকার নোট চিহ্নিত করে ফাঁদ পাতেন। তাদের পরামর্শে কহিনুর বেগম তার ছেলের মাধ্যমে বুধবার দুপুরের পর হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে ২৫ হাজার টাকা ঘুষ প্রদান করেন।

বিভাগীয় পরিচালক আব্দুল আজিজ ভূইয়ার নেতৃত্বে দুদকের একটি দল ছদ্মবেশে উপজেলা চত্ত্বরে অবস্থান নেয়।  হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা টাকা গ্রহণ করার পর দুদকের কর্মীরা টাকাসহ তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন।

দুদকের অন্য সদস্যরা ছিলেন সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক শেখ ফাইয়াজ আলম, রাশেদুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন ও উপ-সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ।

বিকেলে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মোমিন আহম্মেদকে থানায় হস্তান্তর করে।

তার বিরুদ্ধে উপ-পরিচালক শেখ ফাইয়াজ আলম ১৬১ ধারায় সরকারি দায়িত্বে থেকে ঘুষ গ্রহণের দায়ে মামলা করেছেন বলে জানান লালপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *