ধনবাড়ী ও গোপালপুরে খালের উপর বাঁধ ও গরুর খামার করায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

মে ৪, ২০১৭

আপনি দেখছেন: দেশের খবর >> কৃষি, টাঙ্গাইল, স্থানীয় শীর্ষ >> ধনবাড়ী ও গোপালপুরে খালের উপর বাঁধ ও গরুর খামার করায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

আব্দুল্লাহ আবু এহসান, মধুপুর (টাঙ্গাইল): সরকারি খালের উপর বাঁধ দিয়ে পুকুর ও গরুর খামার নির্মাণ করায় টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী ও গোপালপুর উপজেলার সাড়ে পনেরো শত একর বোরো ফসল বিনষ্টের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

খালের উপর বাঁধ ও গরুর খামার করায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ধনবাড়ি উপজেলার বলিভদ্র, অলিপুর, পানকাতা ও খিলপাড়া এবং গোপালপুর উপজেলার নিয়ামতপুর ও বাগবেড় গ্রামের নিম্নাঞ্চলের পানি বাগবেড়-হুশনাবাড়ি খাল হয়ে বৈরান নদীতে পড়ে। গোপালপুর উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের আইয়ুব আলীর পুত্র আসাদুজ্জামান ওরফে সোহেল ওই খালে বাঁধ দিয়ে পুকুর বানিয়ে মাছ চাষ এবং গরুর খামারের ঘর উঠিয়েছে। ফলে ভাটির নিম্নাঞ্চলের পানি নিস্কাশন না হওয়ায় জলাবদ্ধতায় থোড় ও আধা পাঁকা বোরো ধান তলিয়ে গেছে।

বাগবেড় গ্রামের কৃষক আব্দুল মজিদ জানান, ২০০৭ সালে সরকার কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচির আওতায় প্রায় পাঁচ লাখ টাকা ব্যায়ে খালটি সংস্কার করেন। কিন্তু সাত মাস আগে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে আসাদুজ্জামান ওরফে সোহেল পানি নিস্কাশনের খাল বন্ধ করে দেয়। ফলে গত নভেম্বরে জলাবদ্ধতায় আড়াইশ’ একর বোরো বীজতলা পঁচে যায়। পানি নিস্কাশন না হওয়ায় গত জানুয়ারি মাসে শতাধিক একরে বোরো ধান লাগানো যায়নি। ওই জমি পতিত থেকে যায়।

খালের উপর নির্মিত বাঁধ ও গরুর খামার ।

এদিকে সাম্প্রতিক বর্ষণে দুই হাজার একর বোরো জমিতে কোমর পানি দাড়িয়ে আছে। সিংহভাগ ধান পঁচে যাচ্ছে। পানকাতা গ্রামের কৃষক আবুল কালাম জানান, খালের প্রবাহ চালুর জন্য কৃষকরা গত ডিসেম্বরে গোপালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ দেন। তদন্তের  দায়িত্ব পান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহ্জাদা। তিনি গত জানুয়ারি মাসে সরেজমিন তদন্তে ঘটনার সত্যতা পেয়ে রিপোর্ট জমা দেন। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান জানান, এ বিষয়ে শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হবে। মতামত জানার জন্য আসাদুজ্জামান ওরফে সোহেলকে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিক পরিচয় পাওয়া মাত্র লাইন কেটে দেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *