শেরপুরে মানবাধিকারের ধারণা ও প্রায়োগিক দিক নিয়ে কর্মশালা

এপ্রিল ২, ২০১৭

আপনি দেখছেন: দেশের খবর >> অধিকার, শেরপুর, সংগঠন সংবাদ, স্থানীয় শীর্ষ >> শেরপুরে মানবাধিকারের ধারণা ও প্রায়োগিক দিক নিয়ে কর্মশালা

হাকিম বাবুল, শেরপুর: তৃণমূল পর্যায়ের জনগণকে মানবাধিকার এবং জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ভূমিকা সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে শেরপুরে এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসনের সহায়তায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশন শনিবার ‘মানবাধিকার: ধারণা ও প্রায়োগিক দিকসমূহ’ শীর্ষক এ কর্মশালার আয়োজন করে।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য মো. নজরুল ইসলাম।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ক্ষমতা, কার্যাবলি এবং অভিযোগ দায়েরের পদ্ধতি সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। এছাড়া শিশু অধিকার, প্রতিবন্ধী অধিকার ও অভিবাসী কর্মীদের অধিকার সম্পর্কিত তিনটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করে এ বিষয়ে দেশের চলমান বাস্তব পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিতকরণ করা হয়। পরে মুক্ত আলোচনায় কীভাবে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন মানবাধিকারের প্রায়োগিক দিকসমূহ তৃণমূল পর্যায়ে আরও কার্যকর করতে পারে সে বিষয়ে অংশগ্রহণকারীদের মতামত ও সুপারিশ গ্রহণ করা হয়।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য মো. নজরুল ইসলাম। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, সার্বজনীন মানবাধিকারের ঘোষণায়  নাগরিকের সুরক্ষা, সম্মান ও মর্যাদা রক্ষার কথা বলা হয়েছে। মানবাধিকার সুরক্ষা ও বিকাশের পূর্বশর্ত হল মানবাধিকার সম্পর্কে জনসচেতনতা গড়ে তোলা। এছাড়াও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ক্ষমতা, কার্যাবলি এবং অভিযোগ দায়েরের পদ্ধতি সম্পর্কেও জনসাধারণের একটি বিরাট অংশ এখনো অবগত নয়। জেলা পর্যায়ে কর্মশালা আয়োজনের মাধ্যমে মানবাধিকার সম্পর্কে জনঅবহিতকরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। শেরপুর থেকে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের এ জনঅবহিতকরণের কাজ শুরু হলো।

জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন কর্মশালাটি সঞ্চালনা করেন। এতে বিশেষ অতিথি পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গণি, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সহকারী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান, ওয়ার্ল্ডভিশনের সিনিয়র এডিপি ম্যানেজার সজল বৈদ্য, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর সহকারী পরিচালক আলী আকবর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

অন্যান্যের মাঝে সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. একেএম রিয়াজুল হাসান, জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন চন্দ্র পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউল ইসলাম, প্রেসক্লাব সভাপতি রফিকুল ইসলাম আধার, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ উদ্দিন, সাংবাদিক হাকিম বাবুল, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক হাবেজ আহমদ, সাংবাদিক সঞ্জিব চন্দ বিল্টু, এনজিও প্রতিনিধি সাজেদা পারভীন ঝিনুক, প্রধান শিক্ষক জীবন কৃষ্ণ বসু, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট প্রদীপ দে কৃষ্ণ, দেবাশীষ ভট্টাচার্য প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, পাঁচ উপজেলার ইউএনও, পুলিশ পরিদর্শক, সরকারি বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা, সাংবাদিক, শিক্ষক, মানবাধিকার কর্মী, আইনজীবীসহ অর্ধশতাধিক সুধীবৃন্দ এতে অংশগ্রহণ করেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *