সাপ্তাহিক ছুটি নিয়ে মধুপুরে ব্যবসায়ী-শ্রমিক মুখোমুখি অবস্থানে

মে ৮, ২০১৭

আপনি দেখছেন: দেশের খবর >> টাঙ্গাইল, ব্যবসা-বাণিজ্য, স্থানীয়, স্থানীয় শীর্ষ >> সাপ্তাহিক ছুটি নিয়ে মধুপুরে ব্যবসায়ী-শ্রমিক মুখোমুখি অবস্থানে

আব্দুল্লাহ আবু এহসান, মধুপুর (টাঙ্গাইল): টাঙ্গাইলের মধুপুরে প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ‘সাপ্তাহিক ছুটির দিন ঘোষণা’ কে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছেন। এ নিয়ে মধুপুর পৌর শহরে অনেকটা থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। মালিকদের সাথে শ্রমিকদের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণে ব্যবসায়ী সংগঠন মধুপুর শিল্প ও বণিক সমিতি ওই শ্রমিকদের কাজে যোগ না দিতে মাইকিং করে নোটিশ দিয়েছে। সমাবেশ করেছে মালিক পক্ষের সংগঠন মধুপুর শিল্প ও বণিক সমিতি।

সাপ্তাহিক ছুটি নিয়ে মধুপুরে ব্যবসায়ী-শ্রমিক মুখোমুখি অবস্থানে।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত নানা বিচ্ছিন্ন ঘটনায় মধুপুর পৌর শহরের এ চিত্র দেখা গেছে।

অনুষ্ঠিত সমাবেশ থেকে জানা যায়, গত মে দিবসে মধুপুর দোকান প্রতিষ্ঠান কর্মচারি ইউনিয়নের এক সভায় দোকান প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে সাপ্তাহিক একদিনের ছুটি ঘোষণার দাবি করা হয়। মালিকদের পক্ষ থেকে মধুপুর শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি সিদ্দিক হোসেন খান সাপ্তাহিক একদিনের ছুটির বিধান থাকার কথা উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা বিষয়ে দ্বিমত করেন। তিনি অন্যান্য উপজেলা শহরের দোকান, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে ছুটি বিষয়ে যে ব্যবস্থা প্রচলিত আছে মধুপুরেও সে একই নিয়ম প্রচলিত আছে বলে জানান। তারপরও মালিক কর্মচারিদের সমন্বয়ের সিদ্ধান্তে নতুন কিছু করা যেতে পারে বলেও মত দেন তিনি। কিন্তু তার এ বক্তব্যে দোকান প্রতিষ্ঠান কর্মচারি ইউনিয়নের একাংশের সাধারণ সম্পাদক  মাসুদ রানার নেতেৃত্বে ৬ মে শনিবার থেকে দোকান প্রতিষ্ঠানে কর্মচারি উপস্থিত থাকবে না বলে মাইকে প্রচার করে। এ নিয়ে মালিক কর্মচারিদের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়।

রবিবার এ বিষয়ে মিটিং হওয়ার কথা ছিল। তা না হয়ে সেটি সংঘর্ষের রূপ নেয়। পক্ষে বিপক্ষে লাঠিসোটা নিয়ে পৌর শহরে মহড়া শুরু হয়। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা দুইটা পর্যন্ত মহড়া চলাকালে উত্তেজিতদের হাতে ৪/৫ জন পিটুনির শিকার হন। দুই একটি দোকানেও চড়াও হন শ্রমিকরা।

মালিক পক্ষের কেউ কেউ লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ করেন। এতে করে মালিক ও তাদের পক্ষের লোকজন উত্তেজিত হয়ে রাস্তায় নেমে পড়েন। দোকান প্রতিষ্ঠান কর্মচারি ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাসুদসহ অন্যান্যদের খোঁজ না পেয়ে এক পর্যায়ে ময়মনসিংহ রোডস্থ মধুপুর ক্লাবের বিপরীতে দোতলায় তাদের ইউনিয়ন কার্যালয়ের চেয়ার টেবিলসহ আসবাবপত্র ভাঙচুর করে বের করে নিয়ে যায় উত্তেজিতরা।

পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে বেলা আড়াইটার দিকে মধুপুর বাসস্ট্যান্ডের আনারস চত্ত্বরে মধুপুর শিল্প ও বণিক সমিতি এক সমাবেশ করে। সমাবেশে মালিকদের ওই সংগঠনের উপদেষ্টা অধ্যাপক সিরাজুল হক আজাদ, বিল্লাল হোসেন ফকির, সভাপতি সিদ্দিক হোসেন খান, সাধারণ সম্পাদক মীর জহির উদ্দিন বাবর, সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন আহমেদ সেলিম বক্তৃতা করেন। সমাবেশ শেষে সংগঠনের পক্ষ থেকে শহরে মাইকিং করে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করা কর্মচারিদের প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব থেকে স্থগিত রাখতে ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *