হবিগঞ্জে সাংবাদিক গ্রেফতার ও মানিকগঞ্জে সাংবাদিককে মামলায় জড়ানোয় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের প্রতিবাদ

হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রফিককে সোমবার ভোররাতে আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দেখিয়ে গ্রেফতার করা হয়। তার সম্পাদিত ও প্রকাশিত দৈনিক হবিগঞ্জ সমাচার অফিসে কর্মরত অবস্থায় তাকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা করেন স্থানীয় এমপি আবদুল মজিদ খানের ভাতিজা যুবলীগ নেতা আফরোজ মিয়া।

মঙ্গলবার বিডিনিউজের সাংবাদিক গোলাম মুজতবা ধ্রুবের বিরুদ্ধে একই আইনে মানিকগঞ্জের জ্যেষ্ঠ সহকারী জজ মাহবুবুর রহমান মামলা করেছেন। এসব ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ এবং প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সহ-সভাপতি কালিদাস কর্মকার, সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল বারী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রবিউল ইসলাম, অর্থ-সম্পাদক ফারুক মাহবুবুর রহমান, সাহিত্য সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আহসানুর রহমান রাজীব, নির্বাহী সদস্য আশরাফুল ইসলাম খোকন, এম ঈদুজ্জামান ইদ্রিস, মোশাররফ হোসেন ও এবিএম মোস্তাফিজুর রহমান ও অসীম বরণ চক্রবর্তীসহ সকল সদস্যবৃন্দ।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন,  ৫৭ ধারা তথা তথ্য প্রযুক্তি আইনে বারবার সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা করে প্রমানিত হয়েছে এটি মুক্ত সাংবাদিকতার অন্তরায়। হবিগঞ্জ সমাচারের সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা রফিককে পত্রিকা অফিসে কর্মরত অবস্থায় এ ধরনের গ্রেফতার দেশের স্বাধীন সাংবাদিকতার মুখে রীতিমতো চপেটাঘাত। এ আইন অপব্যবহার নিয়ে বারবার স্বীকার করেছেন মাননীয় আইন মন্ত্রী। এখন দরকার এই কালো আইন রহিতকরণ। বিবৃতিদাতারা অবিলম্বে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সদস্য সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম ও অসীম বরণ চক্রবর্তী’র বিরুদ্ধে একই ধারায় মামলা করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এবং প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির নেতৃবৃন্দ। অবিলম্বে সাংবাদিকদ্বয়ের বিরুদ্ধে ওই মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *