হরিণাকুন্ডু থেকে এবার আম রপ্তানি হচ্ছে বিদেশে

প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ: খাদ্যে উদ্বৃত খেতাব পাওয়া ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলা এবার ফলের রাজা আম বিদেশে রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা উপার্জনের নতুন ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের সহায়তায় এ বছর হরিণাকুন্ডু উপজেলায় ব্যাগিং পদ্ধতিতে আম উৎপাদনে আগ্রহী চাষিদের তালিকা তৈরি করে তাদেরকে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। পরে বিদেশে আম রপ্তানিকারকদের সাথে চাষিদের চুক্তিবদ্ধ করতে সহায়তা করা হয়। চুক্তি মোতাবেক সুন্দর, আকর্ষণীয়, স্বাস্থ্যসম্মত ও কীটনাশকমুক্ত আম উৎপাদন নিশ্চিত করতে নিবিড় পরিচর্যা প্রদান অব্যাহত রাখা হয়।

হরিণাকুন্ডু থেকে এবার আম রপ্তানি হচ্ছে বিদেশে|

চায়না থেকে আনা মানসম্মত ব্যাগ চাষিদের জন্য সহজলোভ্য করা হয় এবং ব্যাগ পরানোর কৌশল শেখানো হয়। এ সকল স্তর শেষে আম পাকার মৌসুমের শুরুতে রপ্তানিকারদের সাথে বাগানে বসে চাষিরা আমের মূল্য নির্ধারণ করে। এবার তারা মৌসুমের শুরুর দিকের আম হিম সাগর বাগান থেকে বিক্রয় মূল্য পাচ্ছে ৪০ টাকা এবং ব্যাগিং করা একই আম বিক্রি করছে ৮৫ টাকা কেজি দরে। সাধারণ আমের চেয়ে ব্যাগিং করা আম প্রতিটি ব্যাগ পরানোসহ আনুসঙ্গিক খাতে ১০ টাকা ব্যয় ধরলেও প্রতি কেজিতে অতিরিক্ত ৩৫ টাকা লাভ থাকছে।

ঝিনাইদহ জেলায় প্রথম বিদেশে আম রপ্তানি করে বৈদেশিক অর্থ উপার্জন করছে হরিণাকুন্ডু উপজেলার মালিপাড়া গ্রামের চাষি শহিদুল ইসলাম বিপ্লব। তার মতো আরো কয়েকজন চাষি এ বছর পরীক্ষামূলকভাবে ব্যাগিং পদ্ধতিতে আম চাষে লাভবান হওয়ার স্বপ্ন দেখছে। এ সকল চাষিদের প্রাথমিক সাফল্য দেখে আগামী মৌসুমে অনেক সাধারণ আম বাগানের মালিক ব্যাগিং করে আম চাষের ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন।

উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বিশিষ্ট আম চাষি বদর উদ্দীন মোল্লা তার দুই একরের আম বাগানে আগামী মৌসুমে ব্যাগিং পদ্ধতিতে চাষের কথা জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *