দিনাজপুরের রানীগঞ্জ বাজারে হামলা-ভাংচুরের ঘটনায় ৬৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

রতন সিং, দিনাজপুর: ২০১৩ সালের নভেম্বরে দিনাজপুর সদরের রানীগঞ্জ বাজারে নাশকতা, হামলা ও ভাংচুরে জড়িত থাকার দায়ে বিএনপি-জামায়াতের ৬৯ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক দুটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ।

হরতালের সময় পেট্রোলবোমা নিক্ষেপ, নাশকতা, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও ভাংচুর করার অভিযোগে নিয়মিত এবং বিষ্ফোরক আইনে এসব অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

অভিযুক্ত ৬৯ জন আসামির মধ্যে ছয়জন আটক রয়েছেন। বাকি ৬৩ জন পলাতক। তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রে মো. নাজমুল হোসেনের আদালতে অভিযোগপত্র দুটি উপস্থাপন করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ফিরোজ খান নুর।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১৩ সালের ৬ নভেম্বর দুপুর ১২টায় বিএনপি-জামায়াতের ডাকা হরতালে রানীগঞ্জ বাজারে দোকানপাটে হামলা, ককটেল নিক্ষেপ, হুইপ ইকবালুর রহিমের বিলবোর্ড ভাংচুর ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ অফিস আগুনে পুড়িয়ে দেয় আসামিরা।

বাজারের ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম ঘটনার দু’দিন পর ৮ নভেম্বর কোতয়ালী থানায় মামলা দুটি দায়ের করেন। মামলায় ৪০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো ২০০ জনকে আসামি করা হয়।

ঘটনার পর পুলিশ তিনটি তাজা বোমাসহ ১১টি পেট্রোলবোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করে।