দিনাজপুরে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, দেড় লাখ টাকায় আপোস

রতন সিং, দিনাজপুর: দিনাজপুরে ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। অবশেষে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ দেড় লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটির আপোস করেছে।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার বীরগঞ্জ ক্লিনিকে মঙ্গলবার মধ্যরাতে একই উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব দাড়িয়াপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী সুলতানা খাতুন (২৫) ভুল চিকিৎসায় মারা যান বলে অভিযোগ করেন স্বামী।

দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের গাইনি কনসালট্যান্ট ডা. মাসতুরা বেগম সুলতানার সিজারিয়ান করার পর অবস্থার অবনতি হলে দিনাজপুর জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশনে ভর্তি করা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক এসময় সুলতানাকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রসূতির স্বামী আনোয়ার হোসেন বুধবার দুপুরে অভিযোগ করেন, ভুল চিকিৎসায় অপারেশন থিয়েটারেই তার স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ নিজেদের ব্যর্থতা ধামাচাপা দেয়ার জন্য মৃত সুলতানাকে হার্ট ফাউন্ডেশনে নিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, আমার স্ত্রী হেঁটে বাড়ি থেকে পাকা সড়কে এসে গাড়ি করে বীরগঞ্জে আসে। সে একেবারে স্বাভাবিক ছিল। সন্ধ্যা ৭টায় রোগীকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত চিকিৎসক বলেছেন আপনার রোগী অবস্থা ভালো। কিন্তু সিজারের পর অপারেশন থিয়েটার থেকে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ সরাসরি এ্যাম্বুলেন্সে আমার স্ত্রীকে দিনাজপুর নিয়ে যায়। এ্যাম্বুলেন্সে পরিবারের কাউকে সাথে নেয়নি তারা।

রোগীর শারিরিক অবস্থা আমাদের অবহিত না করেই দ্রুত দিনাজপুর নিয়ে গিয়ে পরে আমাদের জানানো হয় রোগীর মৃত্যু সংবাদ। নার্সদের সাথে কথা বলে নিশ্চিত হই যে, আমার স্ত্রী অপারেশন থিয়েটারেই মারা গেছে এবং অস্ত্রোপচারের ভুলের কারণে তার মৃত্যু হয়।

গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় বীরগঞ্জ ক্লিনিকের স্বত্বাধিকারী মো. বেলাল হোসেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবেশ চন্দ্র রায় ও নিজপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক সরকারের মধ্যস্থতায় মৃত পরিবারের সাথে দেড় লাখ টাকায় আপোস করা হয়।