উচ্চ ফলনশীল বিনাধান-১২ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ঈশ্বরদীতে কৃষকের মাঠ দিবস

স্বপন কুমার কুন্ডু, ঈশ্বরদী (পাবনা): বিনা উদ্ভাবিত জলমগ্নতা সহিষ্ণু ও স্বল্প জীবনকাল সম্পন্ন উচ্চ ফলনশীল রোপা আমন ধানের জাত বিনাধান-১২ এর প্রচার ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ঈশ্বরদীর ২নং ইউনিয়নের চামটিয়ায় সোমবার কৃষকের মাঠ দিবস পালিত হয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ডের (সিসিটিএফ) অর্থায়নে এবং বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) ঈশ্বরদী উপকেন্দ্রের আয়োজনে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবসে প্রধান অতিথি ছিলেন ঈশ্বরদী কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ কৃষিবিদ এস.এম. হাছেন আলী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন লালপুরের উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ হাবিবুল ইসলাম খান এবং বিনা ঈশ্বরদী উপকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং উর্দ্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোঃ রোক্নূজ্জামান। ২নং ঈশ্বরদী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইয়াছিন আলীর সভাপতিত্বে  অনুষ্ঠিত মাঠ দিবসে বক্তব্য রাখেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আজিজুর রহমান এবং এলাকার কৃষক কামরুজ্জামান। এ সময় বক্তারা কৃষকদের উদ্দেশ্যে বিনাধান-১২ এর বৈশিষ্ট প্রসঙ্গে বলেন, এই ধান ২০-২৫ দিন জলামগ্নতা সহিষ্ণু,  স্বল্প জীবনকাল (১২৫-১৩০ দিন) ও আগাম পাকে।

উচ্চ ফলনশীল হওয়ায় হেক্টর প্রতি উৎপাদন হয় ৪.৫ মেট্রিক টন এবং চালের আকৃতি ছোট এবং খেতেও সুস্বাদু। এছাড়া এই জাতের ধানের জীবনকাল কম হওয়ায় সহজে পরবর্তী ফসল যেমন আলু, গম, ভুট্টা, রসুন, ডাল ও তেল জাতীয় ফসল চাষ ওই জমিতে করা যায়।

Be the first to comment on "উচ্চ ফলনশীল বিনাধান-১২ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ঈশ্বরদীতে কৃষকের মাঠ দিবস"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.