গোপালগঞ্জে যাত্রীবাহী বাস মধুমতি নদীতে, শিশু নিহত, আহত অর্ধশত

গোপালগঞ্জ থেকে হায়দার হোসেন: গোপালগঞ্জ-টেকেরহাট সড়কের পদ্মবিলায় অর্ধশতাধিক যাত্রীসহ একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মধুমতি নদীতে পড়ে গেলে শিশু মেহেদী খালাসী (১০) নিহত ও প্রায় অর্ধশত যাত্রী আহত হয়েছে। গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একটি দল স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহত যাত্রীদেরকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

Gopalganj Road Accident Photo-02 (09.03.2015)
জেনারেল হাসপাতালে আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার কংসুর পদ্মবিলা নামকস্থানে ভাস্কর পরিবহনের বাসটি সড়ক থেকে ৩০ ফুট নিচে নদীতে পড়ে যায়।

জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি সাইদুর রহমান বাসু বলেছেন, ঘটনাস্থলে বাসটির সামনের ডান পাশে টায়ার ফেটে যায়। এতে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে মধুমতি নদীতে পড়ে ডুবে যায়।
গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার নিয়ামুল হক জানিয়েছেন, বাসটি পানির নীচে রয়েছে। ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা স্থানীয়দের সহায়তায় ডুবন্ত বাস ওপরে তোলার চেষ্টা করছে। খুলনা থেকে একটি ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে রওনা হয়েছে বলে তিনি জানান। মারাত্মক আহত শেফালী রানী সাহা (৫০), আলমগীর খা (৬০), সেকেন্দার আলী হাওলাদার (৫০), মঞ্জু শেখ (৪২), হারান মৈত্র (২১), পুলিশ সদস্য ইকবাল (৩৫), আশরাফ দানী (৩২), মধু সাহা, (২৫) জবা টিকাদার (৩৫), শেফালী বেগম (২৩), ইব্রাহীম (৩০), শোভা মন্ডলসহ (৩৩) ৪০জনকে গোপালগঞ্জ ২৫০-শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা উদ্ধার কাজ পরিচালনা করছে।

Gopalganj Photo 03(09.03.2015)
স্থানীয়রা উদ্ধার কাজ পরিচালনা করছে