তালাকের পরও নির্যাতন থেকে রক্ষা পাননি স্কুল শিক্ষিকা, প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা

কলাপাড়া(পটুয়াখালী) থেকে মিলন কর্মকার রাজু: প্রায় দুই মাস অতিবাহিত হলেও প্রকাশ্যে উপজেলা পরিষদের সামনে স্কুল শিক্ষিকাকে যৌন নির্যাতন ও হত্যা চেষ্টা মামলার আসামি স্বামী সালাম রেজাকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। এ কারণে মাই টিভির সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সালাম রেজা তাকে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। শুক্রবার সকালে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা দাবি করে এসব অভিযোগ করেন কলাপাড়ার মহিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা আখতারুন্নেছা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন, বিয়ের আট বছরে যৌতুকের জন্য স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ২০১৪ সালের ১ জানুয়ারি সালাম রেজাকে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে তালাক প্রদান করেন। কিন্তু এরপরও তাঁর নির্যাতন থেকে রক্ষা পাননি। স্কুলে, রাস্তায়, বাসায় গিয়ে প্রতিনিয়ত সালাম রেজা টাকার জন্য তাকে হুমকি দেয়। সর্বশেষ গত ১৮ মার্চ দুপুরে কলাপাড়া উপজেলা পরিষদের সামনে ফেলে তাকে যৌন নির্যাতন, মারধর ও হত্যার চেষ্টা করে। আকস্মিক হামলায় সে মাথা, চোখ ও মেরুদন্ডে প্রচন্ড আঘাত পান। উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে।

এ ঘটনায় ১৯ মার্চ কলাপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে তিনি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং ১৪, তাং ১৯.৩.১৫)। মামলা দায়ের করলেও সাংবাদিক নামধারী সালাম রেজার অদৃশ্য ক্ষমতাবলে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার না করায় বেপরোয়া সালাম রেজা তাঁকে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

আখতারুন্নেছা বলেন, সালাম রেজাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য বিভিন্ন সময়ে গরু ও জমি বিক্রি করে এবং ঋণ করে দেড় লক্ষাধিক টাকা দিয়েছেন। কিন্তু তারপরও যৌতুকের জন্য নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় তাকে তালাক দেন। কিন্তু তালাক দেওয়ার পরও তার নির্যাতন কমেনি। তিনি এ যৌতুকলোভীকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানান প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে। এ জন্য তিনি মানবাধিকার সংগঠনগুলোর সহযোগিতা কামনা করছেন।