ঝিনাইদহের স্বর্ণ ব্যবসায়ী বিজয় ৪ দিনেও উদ্ধার হয়নি, পরিবারে শোকের ছায়া

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ: সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর এলাকা থেকে বিজয় কুমার পাল (৩৪) নামে এক জুয়েলারী ব্যবসায়ীকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। গত চার দিনেও পুলিশ তাকে উদ্ধার করতে পারেনি। নিখোঁজ ব্যবসায়ী বাজারগোপালপুর গ্রামের পালপাড়ার মৃত গোউর চন্দ্র পালের ছেলে। বাজার গোপালপুরে তার ভাই ভাই জুয়েলারি নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। মটরসাইকেল ও টাকাসহ তাকে অপহরণ করা হতে পারে বলে বিজয় পালের পরিবারের ধারণা।

Bijoy-Jhenaidah
অপহৃত বিজয় কুমার পাল

গত বুধবার সন্ধ্যা থেকে বিজয় নিখোঁজ রয়েছে। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনও বন্ধ। বিজয়ের ছোট ভাই বিপুল পাল জানান, গত বুধবার তার ভাই টাকা আনতে পার্শ্ববর্তী চোরকোল বাজারে যান। সেখান থেকে বাজারগোপালপুর আসার পথে নিখোঁজ হন। তার কাছে নগদ ৪০ হাজার টাকা ও একটি নতুন ডিসকোভারি-১২৫ সিসি মটরসাইকেল (নং ঝিনাইদহ-হ-১২-৫৬৭৩) রয়েছে। টাকা ও মটরসাইকেলের জন্য তার ভাইকে দুর্বৃত্তরা কিডন্যাপ করতে পারে বলে বিপুল জানান।

বড় ভাই সনজয় কুমার পাল জানান, বিজয় নিখোঁজ হওয়ার পর দিন ৫ মে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে, যার নাম্বার ১৯৭। তিনি আরো জানান, একজনের ফোন পেয়ে বুধবার বিকাল ৫টার দিকে মোটরসাইকেল নিয়ে চোরকোল গ্রামে যান। দেরি দেখে তার দোকানের কর্মচারী প্রশান্ত ফোন দেন। ফোন পেয়ে বিজয় বলেন, আমি একটি মাল (সোনার গহনা) কিনতে যাব। সেটি কিনতে পারলে কিছু লাভ হবে।

সন্ধ্যা ৬টার পর বিজয়ের স্ত্রী শংকরি রানী পাল ফোন দিলে বিজয়ের ফোনটি বন্ধ পেয়ে গোটা পরিবার উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। পরদিন ৫ মে ছোট ভাই বিপুলের বিয়ের আশির্বাদ অনুষ্ঠান ছিল। কিন্তু বিজয়ের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় তা বাতিল করে দেওয়া হয় বলে সনজয় কুমার জানান। গত চার দিনেও বিজয়কে না পাওয়ায় পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে বিজয়ের মোবাইল ট্য্রাকিং করে মহেশপুরের বাঘাডাঙ্গা এলাকায় অবস্থান সনাক্ত করেছে বলে পরিবারটি জানায়। এ বিষয়ে ঝিনাইদহের সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) গোপিনাথ কানজিলাল জানান, বিজয়ের পরিবার একটি জিডি করেছে। জিডির ভিত্তিতে পুলিশ আন্তরিকতার সাথে তদন্ত করছে। তিনি আরো জানান, বিজয়কে অপহরণ করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে তার পরিবার সঠিক কোনও তথ্য দিতে পারছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.